1. riajul.kst1@gmail.com : riajul :
  2. riajul.kst@gmail.com : riajul.kst@gmail.com :
বুধবার, ০৬ জুলাই ২০২২, ০১:৩১ অপরাহ্ন

কুষ্টিয়ায় তরমুজ গরিবের সাধ্যের বাইরে

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ৩০ এপ্রিল, ২০২১
  • ২৪৭ বার নিউজটি পড়া হয়েছে

রিয়াজুল ইসলাম, কুষ্টিয়া : তরমুজ মৌসুমি ফল হওয়ায় প্রতি বছরে অনেকের চাহিদার তালিকায় এই ফলটি থাকে সবার শীর্ষে। তীব্র গরমে সারা দিন রোজা রাখার পর সন্ধ্যার ইফতারিতে সুস্বাদু তরমুজ খাওয়ার ইচ্ছেটা সকলেরই হয়। প্রচণ্ড তাপদাহ ও মাহে রমজানকে কেন্দ্র করে তরমুজ ব্যবসায়ীরা ব্যাপক সুযোগ পেয়ে ইচ্ছেমত দাম বসেছেন। এ বিষয়ে ভ্রামাম্যান আদালতের অভিযান হলেও দাম কমছে না তরমুজের।
কুষ্টিয়া জেলা বাজারে তরমুজের দাম শুনে চোখ কপালে ওঠার অবস্থা। খুব ইচ্ছা এবং তরমুজ কিনার আকাঙ্ক্ষায় বাজারে এসে অসাধু ব্যবসায়ী আর সিন্ডিকেটের কারণে তরমুজের দাম শুনে হতাশ হয়ে ফিরে যাচ্ছেন অনেক ক্রেতা।
বাজারে বিক্রি হচ্ছে ৫৫ থেকে ৬০ টাকা কেজি দরে। আবার কিছু কিছু স্থানে কেজি দরের কথা আপত্তি জানালে ব্যবসায়ীরা কৌশলে কেজি দরের থেকেও আরো অনেক চড়া দাম হাঁকিয়ে নিচ্ছেন, যা সাধারণ মানুষের সাধ্যের বাইরে। কুষ্টিয়ার ছয়টি উপজেলার বাজারে গত কয়েক দিন আগেও তরমুজের দাম ছিলো অনেক কম। ৩০০ টাকা থেকে ৩৫০ টাকায় বিক্রি হতো বড় আকারের তরমুজ, যা এখন বিক্রি হচ্ছে ৬০০ থেকে ৭০০ টাকায়। তাই চাহিদা মতো অনেকেই তরমুজ ক্রয় করতে পারছেন না বলে অভিযোগ করেন ক্রেতারা।
তরমুজের এরূপ দাম থাকলে মৌসুমি এই ফলের স্বাদ গ্রহণ করতে পারবে না সাধারণ ও নিম্নবিত্ত শ্রেণির মানুষ। ইতিমধ্যেই কুষ্টিয়া শহরের আড়ৎদের তরমুজ সিন্ডিকেট ভাঙতে ভ্রাম্যমাণ আদালত এর মাধ্যমে কেজি দরে তরমুজ বিক্রি নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। চাষিদের কাছ থেকে অনেক কম দামে কিনে আনা হয় তরমুজ কিন্তু বাজারে বিক্রি করা হচ্ছে অনেক চড়ামূল্যে। কুষ্টিয়ার অধিকাংশ পেশাদারী ফলের দোকানদাররা দোকান গুটিয়ে তরমুজ বিক্রিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন। কিন্তু কি পরিমাণ লাভ হলে অন্যান্য ফল বিক্রি বন্ধ করে তরমুজ বিক্রিতে ব্যস্ত থাকে ব্যবসায়ীরা এমন প্রশ্নই এখন সবার মুখে।
কুষ্টিয়া সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাধন কুমার বিশ^াস বলেন এ ব্যাপারে বাজার কমিটির সাথে আমরা কথা বলেছি। বিক্রেতাদের কেজি দরে তরমুজ বিক্রি না করে ন্যায্যমূল্যে বিক্রি করার কথা বলা হয়েছে। ইতিমধ্যে আমরা বাজার মনিটরিং ও অভিযান পরিচালনা করেছি। কয়েকজনকে জরিমানা করা হয়েছে। তবে তাদের এই অভিযান অব্যহত থাকবে বলে তিনি জানান।
এমনটাই প্রত্যাশা জেলাসহ উপজেলার সকল তরমুজ ক্রেতাদের। তরমুজ ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেট ভেঙে ন্যায্য মূল্যে তরমুজ বিক্রি করার জন্য প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন সাধারণ ক্রেতাগণ।

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর ....

All rights reserved © 2020 tajasangbad.com
Design & Developed BY Anamul Rasel
x