1. riajul.kst1@gmail.com : riajul :
  2. riajul.kst@gmail.com : riajul.kst@gmail.com :
সোমবার, ১৫ অগাস্ট ২০২২, ০৩:৩৩ পূর্বাহ্ন

কুষ্টিয়ায় গার্মেন্টেসে নারী শ্রমিকদের বেতন না দিয়ে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২ জানুয়ারী, ২০২২
  • ১৩৬ বার নিউজটি পড়া হয়েছে

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি : কুষ্টিয়ায় শহরের মিলপাড়ায় অবস্থিত সরকারের অনুমতি ছাড়াই একটি গার্মেন্সের নাম দুইটি। একটি হচ্ছে নিউ ভাই ভাই গার্মেন্টেস অপর হচ্ছে আফরোজা গার্মেন্টেস। এ গার্মেন্টেসের মালিক একজন তিনি হচ্ছেন রাজু। গার্মেন্টেসে শুধুমাত্র নারী শ্রমিকদের বেতন আলোচনা সাপেক্ষে নিয়োগের পোষ্টার করে ওয়ালে ওয়ালে বা বিদ্যুতের খুঁটিতে প্রচার করেন। নিয়োগের পর নারী শ্রমিকদের সাথে যৌন নির্যাতনের চেষ্টা করছেন এ মালিক।
ভুক্তভোগী ছাটাইকৃত নারী শ্রমিকরা জানান বাংলাদেশ রেলওয়ে জায়গার উপর সরকারের নিয়মনীতি তোয়াক্কা না করে টিনের ছাপড়া ঘরে ভিতর ২০ টি সেলাইয়ের মেশিন দিয়ে গার্মেন্টেস তৈরীর করে কম্পিউটারে কম্পোজ করে বড় আকারে পোষ্টারে বিদ্যুতের খাম্বা ও ওয়ালে টাঙিয়ে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছেন এ প্রতিষ্ঠানের মালিক। এর ফলে আর্থিক সংকটে থাকায় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেখে ছোট বড় নারী শ্রমিকরা ফাঁদে পা ফেলে এ গার্মেন্টেসে চাকুরীর করার সিদ্ধান্ত নেন। অসহায় নারীদের এ সুযোগকে কাজে লাগিয়ে প্রতিষ্ঠানের মালিক নারীর শরীরে খারাপ নজর ও বিভিন্ন ধরনের কুপ্রস্তাব, যৌন নির্যাতন এবং ঢাকাতে ভালো চাকুরীর আশ^াস দেন বলে এ গার্মেন্টেসের মালিক রাজু। এমনটিই অভিযোগ করেছেন ছাটাইকৃত নারী শ্রমিকরা। শহরের ছোট বড় দোকান থেকে অর্ডারে আসা টাওজার মেশিন দিয়ে সেলাইয়ের কাজ করেন নারী শ্রমিকরা। বর্তমানে এ গার্মেন্টে পুরুষ শ্রমিক না থাকলেও ১৭ জন নারী শ্রমিকই আছে। মালিকের কুপ্রস্তাবে রাজী না হলে নারী শ্রমিকের সাথে খারাপ আচরন এবং বেতন পরিশোধ না করে ছাটাই করে দেন এ মালিক। লোভনীয় অফার দেখিয়ে স্থানীয় এক নারী শ্রমিকের সাথে অবৈধ সম্পর্ক গড়ে তোলেন এবং ঐ নারী শ্রমিককে খোঁজে না পেয়ে ঐ নারী শ্রমিকের স্বামী বাদী হয়ে গত ২৮ ডিসেম্বরে কুষ্টিয়া মডেল থানায় রাজুর বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দায়ের করলেও যৌন নির্যাতনের ভুক্তভোগীরা মানসম্মানের ভয়ে থানায় আসতে সাহস পাননি ছাটাকৃত শ্রমিকরা।
ভুক্তভোগী নারী শ্রমিকের অভিভাবকরা বলেন মহামারী করোনা ভাইরাসের কারণে একদম আর্থিক সংকটের কারণে সাংসারিক খরচ চালাতে না পেরে তাদেরকে কাজের জন্য রাজুর গার্মেন্টেসে পাঠান। মাস শেষ হলে তার মেয়েকে বেতন না দিয়ে অন্যান্য মেয়েদের সাথে অনৈতিক সম্পর্ক গড়ে তোলে। তার এর ধরনের অনৈতিক কমকান্ডের কথা মেয়ের মুখে শুনতে পেয়ে তার মেয়েকে কাজে যেতে দেন না অভিভাবরা।
ভুক্তভোগী পালিয়ে যাওয়া নারী শ্রমিকের স্বামী ও মেয়ে বলেন স্ত্রীকে চাকুরী গার্মেন্টেসে চাকুরী অনুমতি দেন তার স্বামী। তার স্ত্রী এ গার্মেন্টেসে চাকুরীর এক বছর পর তার স্ত্রীকে আর খোঁজে পাচ্ছেন না। নারী শ্রমিককে ফিরে পেতে আইনের সাহায্য চেয়েছেন স্বামী ও তার মেয়ে।
গার্মেন্টেসে প্রতিষ্ঠানের মালিক রাজু বলেন গার্মেন্টেস প্রতিষ্ঠানের মালিক রাজু। এ বিষয়ে অস্বীকৃতি জানান এবং তাকে ফাঁসানোর জন্য এ ধরনের সাজানো নাটক তৈরী হয়েছে বলে তিনি দাবী করেন।
এ বিষয়ে কুষ্টিয়া মডেল থানার ওসি ছাব্বিরুল আলমকে মুঠো ফোন কল দিলে তা কেটে দেন।
ইলিয়াস খান, স্কোয়াড্রন লীডার, কোম্পানী কমান্ডার, র‌্যাব-১২ বলেন এ বিষয়ে অভিযোগ পেলে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন ।
যৌন নির্যাতনের কাছ থেকে রক্ষা পেতে এবং পাওনা টাকা ফেরতের জন্য প্রশাসনের কাছে দৃষ্টি আকর্ষন করে শাস্তি চেয়েছেন ভুক্তভোগী নারী শ্রমিকসহ অভিভাবকরা। যাতে করে এ ধরনের কর্মকান্ড কোন নারী শ্রমিকের জীবনে এমনটি আর যেন না ঘটে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর ....

All rights reserved © 2020 tajasangbad.com
Design & Developed BY Anamul Rasel
x