1. raselahamed29@gmail.com : admin :
  2. riajul.kst@gmail.com : riajul.kst :
শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ০৫:১২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কুষ্টিয়ার মিরপুরে ট্রাক চাপায় এক শিশুর মৃত্যু চতুর্থ ধাপের কুমারখালীতে ১১ চেয়ারম্যান পদের বিপরীতে ৬৭ মনোনয়নপত্র জমা কুষ্টিয়ায় ৪ বছরের শিশুকন্যাকে ধর্ষণের অভিযোগে যুবক আটক গভীর রাতে রাস্তার পাশে শিশুসহ মাকে গলা কেটে হত্যা লালমনিরহাটে ইউপি নির্বাচন কে কেন্দ্র করে সমাজ কল্যাণ মন্ত্রীর ভাই আওয়ামীলীগ থেকে বহিস্কার কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় কু-প্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় ৩ সন্তানের জননীকে হত্যার অভিযোগে দুইজনের যাবজ্জীবন পদত্যাগ করলেন সুদানের ১২ মন্ত্রীর কুষ্টিয়ায় কৃষক হত্যায় ৩ জনের যাবজ্জীবন ২৭ নভেম্বর খুলছে চট্টগ্রাম মেডিকেল মহেশখালীর আলাউদ্দিন হত্যা মামলার প্রধান আসামীসহ গ্রেফতার ০৩, অস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার

কুষ্টিয়ায় নলকূপে তীব্র পানি সংকটে

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ৯ এপ্রিল, ২০২১
  • ৩২২ বার নিউজটি পড়া হয়েছে

আরিফ, কুষ্টিয়া : হুমকির মুখে পড়েছে কুষ্টিয়ার জনস্বাস্থ্য। জেলার লক্ষাধিক নলকূপ মাসের পর মাস পানিশূন্য অবস্থায় রয়েছে। পানির জন্যে চলছে হাহাকার আর মাতম। মাঠ-ঘাট, বিল-ঝিল, জলাশয়, পুকুর-নদী কোথাও নেই পানি। পানি নেই নলকূপেও। জেলার ৬টি উপজেলায় লক্ষাধিক নলকূপে এ অবস্থা বিরাজ করছে। এর মধ্যে জেলার শুধুমাত্র সদরেই হাজার হাজার নলকূপ পানির অভাবে অকেজো হয়ে গেছে। এ ছাড়া সদরসহ বিভিন্ন উপজেলা ঘুরে দেখা গেছে কোন নলকূপেই পানি উঠছে না। গত কয়েক মাস ধরে এ অবস্থা বিরাজ করছে। কিছু কিছু জায়গাতে পানি মিললেও চলতি মাসের শুরুতে একেবারেই পানিশূন্য সব নলকূপ। পানির প্রাকৃতিক উৎসগুলি ক্রমেই পানি শূন্য আর গরমের মাত্রা বেড়ে যাওয়ায় ধীরে ধীরে সব নলকূপই এমন অবস্থায় দাঁড়িয়েছে। এ অঞ্চলে গত ৬মাসের বেশী সময় ধরে বৃষ্টিও নেই ফলে ক্রমেই অবস্থার অবনতি অব্যহত রয়েছে। ফলে একদিকে রান্না-বাড়া সহ ঘর-গৃহস্থালীর কাজে যেমন অচলাবস্থা দেখা দিয়েছে অন্যদিকে গরু-ছাগল বা গৃহপালিত পশু-পাখির জন্যও পাচ্ছেনা বিশুদ্ধ পানি। এমন অবস্থায় হুমকির মুখে পড়েছে জনস্বাস্থ্য। তবে জনস্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা বলছে, ব্যাক্তি উদ্যোগে যারা বাড়িতে নলকূপ বসিয়েছে তারা জনস্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ইঞ্জিনিয়রের পরামর্শ নিয়ে নলকূপ স্থাপন করলে শুষ্ক মৌসুমে পানির সংকট থেকে অনেকটাই মুক্তি পাবে। ডিজাইন অনুসারে টিউবওয়েল না বসালে প্রত্যেক শুষ্ক মৌসুমে এটি ঘটতেই থাকবে। গত মাসেও কিছু নলকূপে সামান্য পানি উঠলেও চলতি এপ্রিলে এসে একেবারেই অকেজো হয়ে গেছে সব নলকূপ। গ্রামের দারিদ্র মানুষগুলো এমন অবস্থায় নদনদী বা দূরের কোন জলাশয় থেকে পানি এনে ফুটিয়ে তা পারিবারিক সব কাজে ব্যবহার করছে। গত কয়েকমাস ধরেই তাদের নলকূপে কোন পানি নেই। শুধু গ্রামাঞ্চলের বাড়িতে বাড়িতে নয় পানি নেই স্কুল-কলেজ, বিদ্যালয়ের নলকূপ, পানি নেই হাসপাতালের নলকূপেও। হাট-বাজার, মাঠ-ঘাটের সব জায়গাতেই একই অবস্থা বিরাজ করছে। এমন পরিস্থিতিতে অনেক সামর্থবান মানুষ মাটখুঁড়ে তাদের নলকূপের নীচে ২০/২৫ হাজার টাকা খরচ করে ইঞ্জিন চালিত জলমটর বা সাবমার্সেল পাম্প বা এ জাতীয় মটর স্থাপন করে নলকূপের পানি সচল রাখছে। টিউবয়েল ব্যবসায়ী জানান, তাদের ঘরের শ্রমিকরা গ্রামাঞ্চলে নলকূপ বসিয়ে থাকে। সাধারণত ২০ থেকে ২৪ফুট মাটির নীচে পানির লেয়ার বা স্তর পাওয়া যায় কিন্তু এখন নলকূপ স্থাপন করতে গিয়ে ৩২ থেকে ৪০ ফুট নীচে পানির লেয়ার মিলছে। তবুও পর্যাপ্ত পানি উঠছে না বলে এই ব্যবসায়ী জানান। এমন পরিস্থিতিতে কৃষিকাজে পরিকল্পিত সেচ কার্যক্রম চালানোর উপর গুরুত্ব দিচ্ছে সচেতন মহলের অনেকেই। মাঠে সেচকাজে ব্যাপকহারে সেচপাম্প বসিয়ে ভূগর্ভস্থ পনির অতিরিক্ত ব্যবহার করায় সংকট বাড়ছে বলে অনেকে মনে করছে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর ....

All rights reserved © 2020 tajasangbad.com
Design & Developed BY Anamul Rasel
x