1. raselahamed29@gmail.com : admin :
  2. riajul.kst@gmail.com : riajul.kst :
বুধবার, ১৬ জুন ২০২১, ০৭:৫০ অপরাহ্ন

পঁচিশে বৈশাখ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৬০তম জন্মবার্ষিকী, এবার পালিত হচ্ছে না

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ৭ মে, ২০২১
  • ১৪৯ বার নিউজটি পড়া হয়েছে

রিয়াজুল ইসলাম সেতু, কুষ্টিয়া : কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৬০তম জন্মবার্ষিকী আজ। কলকাতার জোড়াসাঁকোর ঠাকুর পরিবারে ১২৬৮ বঙ্গাব্দে পঁচিশে বৈশাখ জন্মগ্রহণ করেন তিনি। ১৯১৩ সালে কবিগুরুর নোবেল পুরস্কার জয় বাংলা সাহিত্যকে বিশ্বসাহিত্যের মর্যাদা এনে দেয়। বাংলাদেশের জাতীয় সংগীতের রচয়িতাও তিনি। এই উৎসবের আয়োজন এবারও কুষ্টিয়ার কুঠিবাড়ীতে পালিত হচ্ছে না এবার ।
জন্মের দেড় শতাধিক বছর পেরিয়ে গেলেও বাঙালিদের এখন সারা বিশ্বে ছড়িয়ে থাকা বাঙালির কাছেই এক আনন্দঘন উৎসবের এ দিন। কবিগুরুর জন্মদিনের উৎসবে রবীন্দ্রজয়ন্তীর অজস্র অনুষ্ঠান আয়োজন করে গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয় প্রিয় কবির স্মৃতির প্রতি। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের রচনা পরিমাণে বিপুল, বিষয়ে বৈচিত্র্যময়। কবিতা, সংগীত, উপন্যাস, ছোটগল্প, নাটক, প্রবন্ধ, ভ্রমণ, শিশুতোষ রচনাসহ সাহিত্যের প্রতিটি শাখাই সমৃদ্ধ হয়েছে তাঁর মেধা-মনন-সৃজনশীলতায়। প্রায় একক প্রচেষ্টায় তিনি বাংলা ভাষা ও সাহিত্যকে আধুনিক করে তুলেছিলেন। জীবনের শেষ পর্যায়ে চিত্রকলা চর্চায় মনোনিবেশ করে সেখানেও অনন্যতার স্বাক্ষর রেখেছেন। রবীন্দ্র জয়ন্তি এবারও মহামারী করোনায় এবারো কবির স্মৃতি বিজরিত শিলাইদহে সরাসরি কোন অনুষ্ঠানের আয়োজন নেই।
কহিনুর খানম তাজা সংবাদকে জানান বাংলা সাহিত্যের এই প্রাণপুরুষ সমাজকল্যাণমূলক কাজেও রেখেছেন বিশেষ ভূমিকা। শিক্ষাবিস্তার, কৃষি ও কৃষকের উন্নয়নসহ তাঁর জনকল্যাণমূলক কাজগুলোও এক অনুসরণীয় দৃষ্টান্ত হয়ে আছে।
ড. সরওয়ার মুর্শেদ তাজা সংবাদকে জানান তবে কুষ্টিয়ার কুঠিবাড়ীতে এবছর যেন এক অন্য ২৫ বৈশাখ। শান্তিনিকেতনে আনাচে-কানাচেতে আজ ধ্বনিত হচ্ছে না কবিগুরুর গান। চতুর্দিক খাঁ-খাঁ করেছে। করোনা ঘিরে সর্বত্রই সতর্কতা। আগামিবছর ছবিটা পাল্টাবে। ফের রবীন্দ্রনাথযাপন সম্ভব হবে বড় পরিসরে আশা তেমনটাই। ঘরে বসেই রবীন্দ্র-অনুরাগীরা স্মরণ করবে তাঁদের প্রাণের রবিকে।
সুজন রহমান, জেলা কালচারাল অফিসার তাজা সংবাদকে জানান ১৮৯১ সাল থেকে পিতার আদেশে নদিয়া, পাবনা, রাজশাহী ও উড়িষ্যার জমিদারি তদারকি শুরু করেন রবীন্দ্রনাথ। কুষ্টিয়ার শিলাইদহের কুঠিবাড়িতে তিনি দীর্ঘ সময় অতিবাহিত করেন।
ব্যবসায়ীরা জানান কুষ্টিয়ার শিলাইদহ কুঠিবাড়ীকে ঘিরে এখানকার দোকান ব্যবসায়ীরা বেচাবিক্রী করে থাকেন। তবে মহামারী করোনায় কুঠিবাড়ী দুই বছর বন্ধ থাকায় দেখা নেই দশনার্থীদের। তাই তাদের ব্যবসা বানিজ্য নেই অভাবে মধ্যে দিন কাটাতে হচ্ছে তাদেরকে। মহামারী করোনা কেটে গেলে পুনরায় তাদের ব্যবসা বানিজ্য হবে বলে মনে করছেন তারা ।

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর ....

All rights reserved © 2020 tajasangbad.com
Design & Developed BY Anamul Rasel